ক্যাপশন: জেল সুপার গোলাম দস্তগীরের হাতে হ্যান্ড স্যানিটাইজার তুলে দিচ্ছেন একেএম দিদারুল আলম দিদার।

 

ওমর শরীফ ।। বৈশ্বিক মহামারী করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) এর দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলায় করোনা ভাইরাসের উচ্চ সংক্রমণের হাত থেকে রক্ষা পেতে জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখাসহ ঘর থেকে বের হওয়ার সময় মাস্ক পরিধান করতে হবে এবং নিয়মিত হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার নিশ্চিত করতে প্রচারণামূলক চাঁদপুর জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ অব্যাহত।

 

সোমবার (২১ জুন’২১খ্রিঃ) মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর প্রধান কার্যালয় কর্তৃক প্রস্তুতকৃত হ্যান্ড স্যানিটাইজার জেলা কারাগারের বন্দীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার নিমিত্তে জেল সুপার গোলাম দস্তগীরের হাতে হ্যান্ড স্যানিটাইজার তুলে দেন চাঁদপুর জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের সহকারী পরিচালক এ কে এম দিদারুল আলম দিদার। একই দিনে জেলা হিসাব রক্ষক কর্মকর্তা অনিল চন্দ্র সরকারের হাতেও হ্যান্ড স্যানিটাইজার তুলে দেন তিনি।

 

উল্লেখ্য জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর কর্তৃক ইতোপূর্বে (কোভিড-১৯) হতে সুরক্ষার নিমিত্তে চাঁদপুর জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার,সিভিল সার্জন, সরকারের বিভিন্ন দপ্তরের দপ্তর প্রধান, চাঁদপুর প্রেসক্লাব, স্থানীয় দৈনিক পত্রিকার সম্পাদকসহ পত্রিকার পরিবারের লোকজন, অনলাইন পত্রিকার সম্পাদকসহ শিক্ষার্থীরা, সামাজিক সংগঠনের মাঝে সুরক্ষা সামগ্রী বিতরন করেছেন প্রতিষ্ঠানটি। এতে বাদ যায়নি জেলায় চলাচলরত রিক্সা,ভ্যান, ইজিবাইক, সিএনজি স্কুটার,বাস, ট্রাকসহ গণপরিবহন চালকসহ যাত্রী, পথযাত্রী ও শিক্ষার্থীরাও।

 

চাঁদপুর জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের এ ধরনের কার্যক্রম সর্বমহলে ব্যাপক প্রশংসার ঝড় তুলেছেন। তাছাড়া জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর কর্তৃক মাদকবিরোধী অভিযানও জেলাবাসীর মাঝে স্বস্তি ফিরে এসেছে। সচেতন মহল মনে করেন চাঁদপুর জেলাকে মাদকমুক্ত করতে জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর কর্তৃক মাদকবিরোধী প্রচারণা আরো জোরদার করা প্রয়োজন।

 

এ ব্যাপারে জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক এ কে এম দিদারুল আলম দিদার বলেন, আপনারা জানেন আমরা ইতোপূর্বে মাদকবিরোধী প্রচারণামূলক ব্যাপক কার্যক্রম করেছি। কিছুদিন আগেই মাদকবিরোধী প্রচারণামূলক প্রীতি ফুটবল ম্যাচের আয়োজন করেছি। যেখানে চাঁদপুর জেলা প্রশাসক একাদশ বনাম চাঁদপুর পৌরসভা একাদশ অংশগ্রহণ করেছেন। তাছাড়া আমরা দপ্তর কর্তৃক গঠিত রেডিং টিম নিয়ে জেলার বিভিন্ন উপজেলা থেকে বিপুল পরিমান মাদক উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছি। অনেক মামলাও হয়েছে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর কর্তৃক। সবশেষে বলতে চাই চাঁদপুর জেলাকে মাদকমুক্ত করতে আমাদের মাদকবিরোধী অভিযান অব্যহত থাকবে।