29 C
Bangladesh
Thursday, December 2, 2021
spot_img

ফরিদগঞ্জের ইসলামপুরে দোকানে অগ্নিকাণ্ড ।। ১৭ লক্ষাধিক টাকার মালামাল পুড়ে ছাই!

কে.এম. হাছান ।। ফরিদগঞ্জ উপজেলার ২নং বালিথুবার ইসলামপুরে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড ঘটেছে। এতে করে দুইটি দোকান পুরোপুরি আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে যায়। সোমবার গভীর রাতে অগ্নিকাণ্ডের এই ঘটনা ঘটেছে। অগ্নিকাণ্ডে আনুমানিক ১৭ লাখ টাকায় ক্ষতি হয়েছে বলে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন।

স্থানীয়রা এবং পুড়ে যাওয়া কনক এন্টারপ্রাইজের মালিক জাকির হোসেনসহ ব্যবসায়ী নবী উল্লাহ জানান, অন্যান্য দিনের মতো তারা রাত সাড়ে দশটার দিকে দোকান বন্ধ করে বাড়িতে চলে যায়। হঠাৎ রাত তিনটার দিকে শোনা যায় দোকানের দিকে কিসের যেন আওয়াজ হচ্ছে। পরে তারা ঘর থেকে বাহির হয়ে দেখেন তাদের দোকানে আগুন জ্বলছে। পরে তাদের ডাকচিৎকার ও পাশের মসজিদের মাইকে মানুষজনকে ডেকে এনে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করে। এবং চাঁদপুরে ফায়ার সার্ভিসে খবর দিলে তারা এসে এবং এলাকার জনগণ সহ আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। ততক্ষণে কনক এন্টারপ্রাইজ ও নবীউল্লাহর মুদি দোকানের সমস্ত কিছুই পুড়ে ছাই হয়ে যায়। তবে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে নবীউল্লাহ চা ও মুদি দোকানের গ্যাসের চুলা থেকে প্রথমে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়। পরে আগুন দ্রুত পাশের জাকির হোসেনের কনক এন্টারপ্রাইজে ছড়িয়ে পড়ে। তবে ফায়ার সার্ভিস কর্মীদের দাবি বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিটের কারণে এমনটা হতে পারে।

এ বিষয়ে কনক এন্টারপ্রাইজের মালিক মোঃ জাকির হোসেন মিয়াজী সাথে কথা হলে তিনি বলেন, তার দোকানটি মূলত ভেরাইটিস মালামালে পরিপূর্ণ ছিল এবং তিনি একজন খুচরা ও পাইকারি বিক্রেতা। তিনি একজন বিকাশ, নগদ, মোবাইলের লোড, মুদি মালামাল হার্ডওয়্যার এবং বিভিন্ন জাতের জুতাসহ আরো বিভিন্ন মালামালের খুচরা ও পাইকারি বিক্রেতা। তার দোকানে সমস্ত মালামাল সহ, এবং নগদ ৯০ হাজার টাকা এবং দশটি মোবাইল সেট সহ সবকিছু পুড়ে ছাই হয়ে যায়। তার ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ১৪ থেকে ১৫ লক্ষ টাকা দাঁড়াবে বলে তিনি জানান। তিনি অত্যন্ত আবেগ আপ্লুত হয়ে এই প্রতিনিধিকে বলেন, তার বাবা একজন সরকারি চাকরিজীবী ছিলেন। চাকরি শেষ হওয়ার পরে তার বাবার পেনশনের টাকা দিয়ে তিনি এই ব্যবসা শুরু করেছিলেন। কিন্তু আজ সবকিছুই পুড়ে ছাই হয়ে গেলো। তিনি সকলের সহযোগিতা ও দোয়া কামনা করছেন।

অন্যদিকে নবী উল্লাহ বলেন তার দোকানের ফ্রিজ, টিভি এবং মুদি মালামাল সহ প্রায় ২/৩ লক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। তার দোকানের সমস্ত কিছুই পুড়ে ছাই হয়ে যাওয়ার কারণে সংসার নিয়ে তিনি এখন অসহায় হয়ে পড়েছেন।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত জানা যায় অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্তদের সান্ত্বনা দেয়ার জন্য ঘটনাস্থলে এসেছেন ২ নং বালিথুবা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান শাহাদাৎ হোসেন নয়ন, ১ নং বালিথুবা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান জসিম উদ্দিন স্বপন মিয়াজী, ২নং ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান হারুন-উর-রশিদ, ২ নং বালিথুবা ইউনিয়নের আওয়ামীলীগের হয়ে সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী জি এম হাসান তাবাসসুম, ফরিদগঞ্জ উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সদস্য সচিব মোঃ ফারুক হোসেন সহ আরো অনেকে।

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Stay Connected

0FansLike
3,042FollowersFollow
0SubscribersSubscribe
- Advertisement -spot_img

সর্বশেষ সংবাদ